পার্বত্য চট্টগ্রাম বিষয়ক মন্ত্রণালয় গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ সরকার
মেনু নির্বাচন করুন
Text size A A A
Color C C C C
সর্ব-শেষ হাল-নাগাদ: ১৪ ফেব্রুয়ারি ২০১৯

ডিজিটালাইজড হচ্ছে পার্বত্য চট্টগ্রামের ৪ হাজার পাড়াকেন্দ্র


প্রকাশন তারিখ : 2019-02-13

 

পার্বত্য চট্টগ্রামের শিশু ও মহিলাদের শিক্ষা, স্বাস্থ্য ও পুষ্টিসহ সামাজিক সেবা প্রদানের জন্য ৪ হাজার পাড়াকেন্দ্র রয়েছে। প্রাথমিকভাবে তিন পার্বত্য জেলায় প্রথম পর্যায়ে ২৬ টি পাড়াকেন্দ্রের সেবাসমূহ আধুনিক তথ্য প্রযুক্তি নির্ভর করে ডিজিটালাইজড করার সিদ্ধান্ত গ্রহণ করা হয়। ক্রমান্নয়ে সব পাড়াকেন্দ্র ডিজিটালাইজড করা হবে।

আজ পার্বত্য বিষয়ক মন্ত্রণালয়ের সম্মেলন কক্ষে ‘পার্বত্য চট্টগ্রামে ডিজিটাল সেবার প্ল্যাটফর্ম ও মডেল ডিজিটাল পাড়াকেন্দ্র স্থাপন’ শীর্ষক এক আন্ত: মন্ত্রণালয় সভায় এ সিদ্ধান্ত গৃহীত হয়। মন্ত্রণালয়ের মন্ত্রী বীর বাহাদুর উশৈসিং এর সভাপতিত্বে সভায় ডাক, টেলিযোগাযোগ ও তথ্য প্রযুক্তি বিষয়ক মন্ত্রী মোস্তাফা জব্বার উপস্থিত ছিলেন 

সভায় বীর বাহাদুর উশৈসিং বলেন, পার্বত্যবাসীর সামাজিক সেবা প্রাপ্তির কেন্দ্রবিন্দু হিসেবে পাড়াকেন্দ্রসমূহ অগ্রণী ভূমিকা পালন করছে। এ এলাকায় বিদ্যমান ৪ হাজার পাড়াকেন্দ্রের পাশাপাশি আরও ১ হাজার পাড়াকেন্দ্র নির্মাণ করা হবে। মন্ত্রী বলেন, একটি সমৃদ্ধ পার্বত্য চট্টগ্রাম বিনির্মাণে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা নির্দেশিত সমউন্নয়ন নিশ্চিতকরণে পার্বত্য এলাকায় অগ্রাধিকারভিত্তিক উন্নয়ন কর্মকান্ড পরিচালিত হচ্ছে। যার ফলে পার্বত্যবাসীর জীবনমানের উন্নতির সাথে জাতীয় উন্নয়নে পার্বত্য অঞ্চল সক্রিয়ভাবে অংশগ্রহণ করছে।

সভায় মোস্তাফা জব্বার বলেন, পার্বত্য চট্টগ্রামে আধুনিক তথ্যপ্রযুক্তি সেবা প্রদানে পাড়াকেন্দ্রসমূহ ডিজিটালাইজড করা হবে। যার ফলে এ অঞ্চলের শিশুরা প্রাক প্রাথমিকস্তরেই আধুনিক তথ্য প্রযুক্তির সাথে পরিচিত হয়ে তাদের মাতৃভাষাসহ সামাজিক সেবা সমন্বিতভাবে গ্রহণ করতে পারবে। তিনি আরও বলেন, ডিজিটাল পার্বত্য চট্টগ্রাম বিনির্মাণে পাড়াকেন্দ্রসমূহ জোরালো ভূমিকা পালন করবে এবং ভিশন ২০২১ বাস্তবায়ন তরান্বিত করতে অবদান রাখবে। দ্রুত গতির ইন্টারনেট সেবা দূর্গম এলাকায় পৌঁছাতে সরকার আন্তরিকভাবে কাজ করছে।

সভায় তথ্য প্রযুক্তি বিভাগের সচিব এন এম জিয়াউল আলম, পার্বত্য চট্টগ্রাম বিষয়ক মন্ত্রণালয়ের ভারপ্রাপ্ত সচিব মো: মেসবাহুল ইসলাম, রাঙ্গামাটি পার্বত্য জেলা পরিষদের চেয়ারম্যান বৃষকেতু চাকমা, খাগড়াছড়ি পার্বত্য জেলা পরিষদের চেয়ারম্যান কংজরী চৌধুরী, মন্ত্রণালয়ের উর্দ্ধতন কর্মকর্তাবৃন্দ, পার্বত্য চট্টগ্রাম উন্নয়ন বোর্ড এবং  এক্সেস টু ইনফরমেশন প্রকল্পের সংশ্লিষ্ট কর্মকর্তাবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন।

 


Share with :

Facebook Facebook